মহিলাকে গণধর্ষণের পর গোপনাঙ্গে রড ঢুকিয়ে খুনের অভিযোগ

280
প্রতীকী

লখনউ: নির্ভয়া কাণ্ডের নিষ্ঠুরতার ছবি এবার দেখা গেল উত্তরপ্রদেশে। চলন্ত গাড়িতে এক মহিলাকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠল। ধর্ষণের পর নির্যাতিতার গোপনাঙ্গে রড ঢুকিয়ে ভেঙে দেওয়া হল পাঁজর ও পায়ের হাড়। রক্তপাত বন্ধ না হওয়ায় মৃত্যু হয় ওই মহিলার। ঘটনায় অভিযুক্ত তিনজনের মধ্যে দু’জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রবিবার সন্ধ্যায় উত্তরপ্রদেশের বদায়ু জেলার উঘাইতি থানা এলাকার ঘটনা। মন্দিরে পুজো দিতে গিয়ে আর ফেরেননি মধ্যবয়সী ওই মহিলা। মধ্যরাতে রাস্তার পাশে রক্তাক্ত অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করা হয়। জানা গিয়েছে, ধর্ষণের পর অভিযুক্তরা তাঁকে গাড়ি থেকে ফেলে দেয়। মহিলাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসাধীন থাকাকালীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়।

- Advertisement -

মঙ্গলবার নির্যাতিতার ময়নাতদন্তের রিপোর্টে বলা হয়েছে, গোপনাঙ্গে মারাত্মক আঘাতের একাধিক চিহ্ন ছিল। তা থেকে রক্তক্ষরণ হয়েছে। তাঁর হাড়গোড় একটি পা-ও ভেঙে গিয়েছিল। অভিযুক্তদের ধরতে পুলিশের চারটি পৃথক টিম গঠন করা হয়। এলাকাবাসীর বিবরণের ভিত্তিতে পুলিশ তিনজনের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করে। এদিকে গোটা ঘটনায় পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ তুলেছে নির্যাতিতার পরিবার। মহিলার পরিবারের অভিযোগ, উঘাইতি থানায় অভিযোগ দায়ের করা সত্ত্বেও সেখানকার অফিসার ঘটনাস্থলে আসতে চাননি। এমনকি দেহ ময়নাতদন্তে পাঠানো নিয়েও গড়িমসির অভিযোগ উঠেছে। একজন মহিলা চিকিত্‍‌সক সহ তিন ডাক্তারের উপস্থিতিতে ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। গণধর্ষণ ও খুনের মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।