দুদিন ধরে রাস্তায় পড়ে মহিলা

বিপ্লব হালদার, গঙ্গারামপুর : দুদিন ধরে রাস্তায় পড়ে কাতরাচ্ছিলেন। পাশে দিয়ে হেঁটে গিয়েছেন বহু মানুষ। কিন্তু অসুস্থ মাঝবয়সি ওই মহিলার দিকে ঘুরেও তাকাননি কেউ। অবশেষে গঙ্গারামপুর থানার পুলিশ ও প্রশাসনিক কর্তাদের তৎপরতায় হাসপাতালে ঠাঁই হল মহিলার। পুলিশ ও মহকুমা প্রশাসন কর্তাদের এই মানবিক সিদ্ধান্তে স্বস্তির হাঁফ ছেড়েছেন এলাকার মানুষজন।

গঙ্গারামপুর ব্লকের বেলবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের বেলবাড়ি শিবমন্দির এলাকায় প্রায় ৪৫ বছর বয়সি এক মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলা অসুস্থ হয়ে পড়েন। শরীরে ঘা নিয়ে গত দুদিন ধরে রাস্তার ধারে পড়ে কাতরাচ্ছেন। তাঁর পাশ দিয়ে অনেকে হেঁটে গেলেও করোনার ভয়ে ওই অসহায় মহিলার দিকে কেউ মুখ ফিরেও তাকাননি। এই খবর পৌঁছোয় গঙ্গারামপুর থানার আইসি পূর্ণেন্দুকুমার কুণ্ডুর কাছে। তারপরেই তিনি ওই মহিলাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ায় উদ্যোগী হন। খবর যায় ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট মনোতোষ মণ্ডল ও গঙ্গারামপুর ব্লক প্রশাসনের কাছে। সময় নষ্ট না করে রাতেই গঙ্গারামপুর থানার আইসি, ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট, বিডিও অঙ্কিত আগরওয়াল, যুগ্ম বিডিও অর্ক মাণ্ডি বেলবাড়ি শিবমন্দির এলাকায় পৌঁছে যান। মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক সুকুমার দের তৎপরতায় এলাকায় পৌঁছোয় অ্যাম্বুল্যান্স। এরপরেই প্রশাসনিক কর্তারা স্থানীয় যুবকদের সাহায্যে ওই মহিলাকে রাস্তা থেকে অ্যাম্বুল্যান্সে তুলে দেন। রাতেই ওই মহিলাকে বালুরঘাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

- Advertisement -

নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক বেলবাড়ি শিবমন্দির এলাকার একাধিক বাসিন্দা জানিয়েছেন, দুদিন ধরে অপরিচিত ওই মহিলা রাস্তার ধারে পড়েছিলেন। করোনা আবহে আমরা অনেকেই ভয়ে মহিলার কাছে যেতে পারিনি। রাতে প্রশাসনের তরফে মহিলাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রশাসনের এমন মানবিক কাজে আমরা খুশি। এবিষয়ে আইসি বলেন, বেলবাড়ি শিবমন্দির এলাকায় এক মহিলা রাস্তার ধারে পড়েছিলেন। মহকুমা প্রশাসনের উদ্যোগে মহিলাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট বলেন, গতকাল রাতে খবর পাই, এক মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলা রাস্তার ধারে পড়ে রয়েছেন। খবর পেয়ে সেখানে যাই। মহিলার শরীরে ঘা থাকায় তাঁর সাহায্যে কেউ এগিয়ে আসেননি। বিষয়টি মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিককে জানানো হয়। তিনি একটি অ্যাম্বুল্যান্স পাঠান। রাতেই আমরা স্থানীয় কয়েকজন যুবকের সাহায্যে ওই মহিলাকে অ্যাম্বুল্যান্সে তুলি। তাঁকে বালুরঘাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সেখানে তাঁর চিকিৎসা চলছে।