বালুরঘাটে মাদকের হোম ডেলিভারিতে লেডিস গ্যাং

347

সুবীর মহন্ত, বালুরঘাট : এও যেন এক ধরনের হানি ট্র‌্যাপ। স্কুটারে আসছেন সুন্দরী তরুণীরা। বেশভূষায়, চালচলনে স্মার্টনেস ফুটে বেরোচ্ছে। রাস্তায় সরাসরি বা তীর্যক চাউনি পুরুষদের। কিন্তু এই স্মার্ট তরুণীরাই নাকি ড্রাগসের হোম ডেলিভারি করছেন। এমন হানি ট্র‌্যাপের সন্ধান পেয়ে ঘুম উড়েছে পুলিশেরও। পুলিশ সূত্রে জানা যাচ্ছে, টু হুইলারে নেশাজাত দ্রব্যের হোম ডেলিভারির লেডিস গ্যাংয়ে শুধু স্থানীয় মহিলারাই নয়, ব্যবহার করা হচ্ছে ভিনজেলা বা রাজ্যের মহিলাদেরও। বালুরঘাটে এমন ঘটনা এখন প্রায়শই সামনে আসতে শুরু করেছে।

পতিরামে ব্রাউন সুগার সহ দুই মহিলাকে গ্রেপ্তারের পর সব জেনে পুলিশের চক্ষু চড়কগাছ। তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে, বিহার থেকে মহিলাদের এনে বাড়ি ভাড়া করে রাখা হচ্ছে। সেখান থেকে ওই মহিলারা স্কুটার করে ব্রাউন সুগারের হোম ডেলিভারি দিচ্ছেন। বালুরঘাট শহর ও শহর সংলগ্ন এলাকাগুলিতে এই লেডিস গ্যাংয়ের জাল আরও ছড়িয়ে রয়েছে বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানতে পেরেছে পুলিশ। ধৃতদের হেপাজতে নিয়ে আরও তথ্য জানতে চাইছে পুলিশ। এই চক্রের সঙ্গে আর কারা জড়িয়ে রয়েছে, তার খোঁজ শুরু হয়েছে।

- Advertisement -

সংস্কৃতির শহর বলে পরিচিত বালুরঘাটে অনেক অন্ধকার দিকও রয়েছে। শহর থেকে গ্রাম, সর্বত্র যুবক-যুবতীদের একাংশ বিভিন্ন নেশায় আসক্ত। মদ, গাঁজা তো বটেই ব্রাউন সুগারের চাহিদা এখন তুঙ্গে। বস্তুটি ব্রাউন সুগার হলেও বালুরঘাটের সর্বস্তরের মানুষের কাছে এটি পরিচিত কিলবিশ নামে। মধ্যবিত্ত, উচ্চবিত্ত থেকে স্কুল-কলেজ পডুয়া বহু যুবক, এমনকি যুবতীরাও এখন এই নেশায় আসক্ত। নেশাগ্রস্তদের অপরাধের ঘটনাও নজরে আসছে। সম্প্রতি এটিএম ভাঙার ঘটনা, ডাকাতির চেষ্টার পাশাপাশি নেশাগ্রস্তদের হাতে খুন, ইভটিজিং সহ নানা অপরাধমূলক ঘটনা বালুরঘাট শহর ও সংলগ্ন এলাকায় ঘটেছে। বালুরঘাট ও পতিরাম থানার পুলিশ ধারাবাহিকভাবে নেশার ঠেকে যেমন অভিযান চালাচ্ছে, তেমনই মাদক ব্যবসাযীদের বিরুদ্ধেও কড়া ব্যবস্থা নিচ্ছে।  বিভিন্ন নেশাজাত সামগ্রীর পাচারে যুক্ত কয়েজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের বেশিরভাগ অবশ্য পুরোনো মামলার আসামি। তাই সহজেই পুলিশ তাদের চিহ্নিত করে গ্রেপ্তার করতে পেরেছে।

তাই পুলিশের নজর এড়াতে নেশার সামগ্রীর হোম ডেলিভারি দিতে এবার নতুন কায়দায় মহিলাদের ব্যবহার করা শুরু করেছে মাদক ব্যবসায়ীরা। কয়েক মাস আগে শিলিগুড়ি থেকে ৩২ কেজি গাঁজা সহ ধরা পড়েছিল দুজন। মালদার বাসিন্দা এক মহিলাকে নিজের স্ত্রী বানিয়ে গাড়িতে চাপিয়ে ওই গাঁজা বালুরঘাটে নিয়ে আসছিলেন এক ব্যক্তি। গতমাসেও চকভৃগুর আখিরাপাড়া এলাকা থেকে এক মহিলাকে গাঁজা সহ গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এবার পতিরামের ব্রাউন সুগার হোম ডেলিভারি দেওয়ার অভিযোগে দুই মহিলার গ্রেপ্তারি পুলিশের সামনে নতুন তথ্য নিয়ে এসেছে।

জানা যাচ্ছে, ধৃত দুই মহিলার মধ্যে বিহার থেকে একজনকে এনে পতিরামে বাড়ি ভাড়া করে রাখা হয়েছিল। সেখান থেকে স্থানীয় মহিলাদের সহযোগিতায় স্কুটারে চেপে এই মাদকের হোম ডেলিভারি করত তারা। এই লেডিস গ্যাংয়ের সদস্যরা আর কোথায় ছড়িয়ে আছে, তা জানার চেষ্টা করছে পুলিশ।