মাদারিহাট, ৬ সেপ্টেম্বরঃ শুক্রবার মাদারিহাটের তিনটি জায়গায় হানা দিয়ে প্রায় ১৪ লক্ষ টাকা মূল্যের সেগুন কাঠ সহ আসবাবপত্র উদ্ধার হল। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে মাদারিহাট বনদপ্তর, লঙ্কাপাড়া বনদপ্তর, মাদারিহাট থানার পুলিশের নেতৃত্বে এই অভিযান চালানো হয়। প্রথমে ধুমচিপাড়া চাবাগানের ফ্যাক্টরি লাইন থেকে প্রায় ৯ লক্ষ টাকা মূল্যের সেগুন গাছের গুঁড়ি সহ চেরাই করা সেগুন কাঠ ও আসবাবপত্র উদ্ধার করা হয়। সেখানে ধরা পড়ে দুইজন। এরপর বাগানের এক জায়গায় প্রায় ৪ লক্ষ টাকা মূল্যের সেগুন কাঠের গুঁড়ি উদ্ধার হয়। অপরদিকে ছেকামারি গ্রামে হানা দিয়ে প্রায় লক্ষাধিক টাকার সেগুন কাঠ উদ্ধার করে বনদপ্তর। তবে তদন্তের স্বার্থে ধৃতদের নাম জানাতে চাননি আধিকারিকরা।
ঘটনা প্রসঙ্গে মাদারিহাট বনদপ্তরের রেঞ্জার খগেশ্বর কার্জি জানান, ধুমচিপাড়া চাবাগানের ধৃতদের মধ্যে একজনের কোয়ার্টার সংলগ্ন সুপারি বাগানে আসবাবপত্র তৈরির কারখানা খোলা হয়েছিল। কারখানায় তৈরি করা হচ্ছিল সেগুন কাঠের আলমারি, খাট, ড্রেসিং টেবিল, সোফা, আলনা সহ নানারকম সামগ্রী।
এদিন সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত ৪ ট্রাক কাঠ উদ্ধার করা হয়েছে। এরমধ্যে দুই ট্রাক শুধু আসবাবপত্র। তিনি জানান, কাঠগুলো কোথা থেকে চোরাপথে আসত ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। কাঠ চেরাই করার সামগ্রী বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। বাগানের সর্বত্র তল্লাশি করা হচ্ছে।