থমকে ফুট ওভারব্রিজ তৈরির কাজ, সমস্যায় যাত্রীরা

300

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: রেললাইনে বসা কিংবা রেললাইন দিয়ে হেঁটে যাওয়া আইনত অপরাধ। এই বার্তা প্রতিনিয়ত ঘোষণা করা হয় প্রতিটি রেলস্টেশনে। রেল দপ্তরের সেই নির্দেশ মেনে চলার জন্য দীর্ঘদিন ধরে বর্ধমান-রামপুরহাট লুপ লাইনের নোয়াদার ঢাল স্টেশনে ফুট ওভারব্রিজ তৈরির দাবি জানিয়ে আসছেন রেলযাত্রীরা ও সাধারণ মানুষ। কিন্তু আজও বিশবাঁও জলে ফুট ওভারব্রিজ তৈরির কাজ। তার ফলে হেঁটে রেললাইন পারাপার করতে গিয়ে বিগত সাতবছরে বহুবার ছোট-বড় দুর্ঘটনা ঘটেছে। ট্রেনের চাকার নীচে পড়ে পাঁচজনের প্রাণও গিয়েছে।  তবুও হুঁশ ফেরেনি রেল দপ্তরের। কবে রেল দপ্তর ফুট ওভারব্রিজ তৈরি করে এখন সেদিকেই তাকিয়ে নোয়াদার রেল যাত্রী ও সাধারণ মানুষজন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এলাকার বাসিন্দাদের দীর্ঘদিনের দাবি মেনে বছর সাতেক আগে নোয়াদার ঢাল স্টেশনে উঁচু প্ল্যাটফর্ম তৈরি হয়। তারপর থেকেই নোয়াদার স্টেশনে ফুট ওভারব্রিজ তৈরির দাবি ওঠে। এক বছর আগে ফুট ওভারব্রিজ তৈরির কাজ শুরু হয়। কিন্তু ঢালাই পিলার তৈরির প্রাথমিক কাজ হওয়ার পর থেকে কোনও এক অজ্ঞাত কারণে বন্ধ হয়ে রয়েছে। নোয়াদার ঢাল স্টেশনের যাত্রীরা বারে বারে রেল প্রশাসনের কাছে দরবার করে চলেছেন। তাঁরা ডিআরএম থেকে শুরু করে জিএম, সবার কাছে ফুট ওভারব্রিজ তৈরির দাবি জানিয়েছেন। কিন্ত কোনও ফল হয়নি বলে অভিযোগ। তাই বাধ্য হয়েই নোয়াদা, শিবদা, দেয়াশা, আলিগ্রাম, ওড়গ্রাম সহ বেশ কয়েকটি গ্রামের কয়েক হাজার যাত্রী প্রতিদিন ট্রেন থেকে নেমে রেললাইন দিয়ে হেঁটেই যাতায়াত করছেন।

- Advertisement -

নোয়াদার রেল যাত্রী সমিতির সদস্য বিশ্বজিৎ মণ্ডল বলেন, রেললাইনের উপরে বসা কিংবা হেঁটে যাওয়া আইনত অপরাধ বলে ঘোষণা করেছে রেল দপ্তর। নোয়াদার ঢাল সহ দেশের অন্য সমস্ত স্টেশন কর্তৃপক্ষও প্রতিদিন মাইকে সেকথা ঘোষণাও করে। কিন্তু ফুট ওভারব্রিজ না থাকায় নোয়াদার ঢাল স্টেশনের যাত্রীদের রেললাইন দিয়ে হেঁটেই যাতায়াত করতে হচ্ছে। বিশ্বজিৎবাবু বলেন, লাইন পারাপার করতে গিয়ে গত তিন বছরে তিন জন যাত্রী কাটা পড়েছেন। লাইনে মালগাড়ি দাঁড়িয়ে থাকার সময়ে সবাইকে জীবনের ঝুঁকি নিয়েই রেললাইন পারাপার করতে হয়। ওই সময়ে সব থেকে বেশি সমস্যায় পড়তে হয় মহিলা, বয়স্ক ও শিশুদের।

নিত্যযাত্রী গৌর রায় বলেন, এই বিষয়টি নিয়ে তাঁরা রেল দপ্তরে বহু আবেদন নিবেদন করার পর চলতি বছরে জানুয়ারি মাসে ফুট ওভারব্রিজ তৈরির কাজ শুরু হয়। কিন্তু স্টেশনের মাটির সমান্তরাল ঢালাই পিলার তৈরির প্রাথমিক কাজটুকু হওয়ার পরেই কাজ বন্ধ হয়ে যায়। এখনও কাজ বন্ধ রয়েছে। এখন হাতে গোনা কয়েকটি এক্সপ্রেস ট্রেন বর্ধমান-রামপুরহাট লুপ লাইনে চালাচল করছে। এই সময়ে ব্রিজের কাজ হলে কোনও সমস্যা হত না। নোয়াদার ঢাল স্টেশনের ম্যানেজার আনন্দ এক্কা জানাতে পারেননি কি কারণে ফুট ওভারব্রিজ তৈরির কাজ বন্ধ আছে। পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক নিখিল চক্রবর্তী বলেন, কী কারণে ফুট ওভারব্রিজ তৈরির কাজ শেষ হয়নি, সেই বিষয়ে আমি খোঁজ নেব।