ভাটিবাড়ির কুমারীজানে চলাচলের অযোগ্য রাস্তা সংস্কারের দাবি

307

শামুকতলা : বেহাল রাস্তা সংস্কারের দাবি তুলেছেন ভাটিবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের কুমারীজান মৌজার বাসিন্দারা। ভাটিবাড়ির কুমারীজান মৌজায় পূর্ত দপ্তরের সড়ক থেকে দক্ষিণ দিকে চিলুরঘাট প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত বালি পাথরের রাস্তাটি বর্তমানে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। রাস্তার বেশ কয়েকটি অংশে বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হয়েছে। সামান্য বৃষ্টি হলে জল কাদায় পূর্ণ হয়ে থাকে রাস্তাটি। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে,  পুলিশের নজর এড়াতে অবৈধ বালি-পাথর বহনকারী ট্রেলারগুলি এই রাস্তা ধরেই তুফানগঞ্জের দিকে যায়। ফলে বর্ষার পর থেকে রাস্তার অবস্থা ভয়াবহ হয়ে উঠেছে। অভিযোগ. রাজনৈতিক কারণে রাস্তা সংস্কারের প্রস্তাব গ্রাম সংসদ সভায় তোলাই হয়নি। ফলে রাস্তা সংস্কারের উদ্যোগও নিতে পারেনি পঞ্চায়েত কর্তৃপক্ষ।

বেহাল এই রাস্তা সংস্কার না হওয়ায় ক্ষুদ্ধ এলাকার বাসিন্দারা।  স্থানীয় বাসিন্দা নিতাই বিশ্বাস বলেন, ‘রাস্তার পরিস্থিতি এতই খারাপ যে সাইকেল নিয়েও যাতায়াত করা যায় না।’ আরেক স্থানীয় বাসিন্দা তথা কৃষক ধনঞ্জয় দাস বলেন, ‘বেহাল রাস্তার কারণে খেতের ফসল সাইকেল বা ঠেলায় করে বাজারে নিয়ে যেতে ভোগান্তির শিকার হতে হয়।’ গৃহবধূ রীতা বিশ্বাস ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, ‘রাস্তার অবস্থা ধানের চারা রোপণ করা জমির মতো হয়ে রয়েছে। অথচ সংস্কারের কোনো উদ্যোগ নেই।’ স্থানীয় যুবক মৃত্যঞ্জয় সরকার বলেন, ‘বাসিপাথরের ট্রেলারগুলির যাতায়াত করার ফলে রাস্তাটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে।’

- Advertisement -

ভাটিবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান স্বপন দেবনাথ বলেন, ‘রাস্তার বেহাল দশার কথা শুনেছি। স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েতের পক্ষ থেকে গ্রাম সংসদ সভায় বিষয়টি তোলা হয়নি। গ্রাম সংসদ সভায় রাস্তা সংস্কারের প্রস্তাব পাশ না হওয়ায় অ্যাকশন প্ল্যান গ্রহণ করা যায়নি।’ কুমারীজান মৌজার ১০/২৬৫ নং বুথের নির্দল পঞ্চায়েত সদস্যা মামনি দাসের বলেন,  ‘রাস্তার সমস্যার কথা গ্রাম সংসদ সভায় তোলা হলেও সংকীর্ণ রাজনীতির কারণে রাস্তার সংস্কার করা হচ্ছে না।’’

ছবি- কুমারীজানের এই রাস্তার সংস্কার চান গ্রামবাসীরা।

তথ্য ও ছবি – হরিপদ পাল