মদ-জুয়ার নেশায় আসক্ত যুবকরা, প্রতিবাদে ঠেক ভাঙলেন মহিলারা

160

রায়গঞ্জ: গ্রামে গড়ে উঠেছে একাধিক নেশার ঠেক। মদ, জুয়া ও গাঁজার নেশায় আসক্ত হয়ে পড়ছেন পরিবারের ছেলেরা। এমনকি নেশার টাকা জোগাড় করতে না পারলে আত্মহত্যার ঘটনা ঘটছে। এবার মদ, গাঁজা কারবারিদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ালেন গ্রামের মহিলারা। বুধবার রাতে নেশার ঠেক ভাঙেন তাঁরা। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে রায়গঞ্জে। অবিলম্বে দুষ্কৃতীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে সরব হয়েছেন তাঁরা।

রায়গঞ্জ ব্লকের ৯ নম্বর গৌরি অঞ্চলের ইটাল গ্রামে দীর্ঘদিন ধরে গড়ে উঠেছে একাধিক নেশার ঠেক। জানা গিয়েছে, গৌরি অঞ্চলে সাতটি জায়গায় নেশার সামগ্রী বিক্রি হয়। এছাড়াও রয়েছে জুয়ার ঠেক। মদ ও নেশার সামগ্রী কেনাবেচাকে কেন্দ্র করে শুরু হয়েছে দুষ্কৃতীদের আনাগোনা। এলাকায় বাড়ছে চুরি-ছিনতাই। পুলিশ মাঝেমধ্যে অভিযান চালালেও দুষ্কৃতীদের দৌরাত্ম্য কমছে না। সপ্তাহখানেক আগে শ্যামপুর ও দেবীনগরে দুটি মোবাইলের দোকানে চুরির ঘটনা ঘটে।

- Advertisement -

স্থানীয়রা জানান, যুব সমাজ নেশায় আসক্ত হয়ে পড়ছেন। এলাকার একটা বড় অংশ দরিদ্র সীমার নীচে বাস করেন। এই পরিস্থিতিতে গ্রাম সংলগ্ন বাজারে মদ এবং জুয়ার আসর বসায় দিনের রোজগারের সর্বস্ব খুইয়ে আসছেন এলাকার পুরুষরা। গ্রাম পঞ্চায়েত, পুলিশের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন তাঁরা। নেশার ঠেকের কথা স্বীকার করে নিয়ে গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান সীমা মণ্ডল জানান, পুলিশ মাঝেমধ্যে সেখানে অভিযান চালায়। রায়গঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য রেজাউল হক জানান, মহিলারা এর আগেও আন্দোলন করেছেন। প্রশাসনের কাছে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি। যদিও এই বিষয়ে রায়গঞ্জ থানার আইসি-কে ফোন করা হলেও তিনি ফোন না ধরায় কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।