দুর্গাপুজো নিয়ে ভুয়ো পোস্ট ছড়ানোয় গ্রেপ্তার যুবক

2003

বর্ধমান: দুর্গাপুজো নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভুয়ো ও বিভ্রান্তিকর তথ্য পোস্ট করার অভিযোগে এবার গ্রেপ্তার হলেন পূর্ব বর্ধমানের মেমারির এক যুবক। ধৃতের নাম সুনীল মণ্ডল। তাঁর বাড়ি মেমারি পুরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের কৃষ্ণবাজার মসজিদতলা এলাকায়। বৃহস্পতিবার রাতে মেমারি থানার পুলিশ কৃষ্ণবাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে। শুক্রবার ধৃতকে বর্ধমান আদালতে পেশ করা হবে বলে পুলিশ জানিয়েছে। দুর্গাপুজো নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভুয়ো পোস্ট ছড়ানোর অভিযোগে এই নিয়ে রাজ্যের তিন জন গ্রেপ্তার হলেন।

প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, কয়েকদিন আগে দুর্গাপুজো নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভুয়ো ও বিভ্রান্তিকর একটি পোস্ট ছড়ানো হয়। সেটি মুহুর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায়। ওই পোস্টে দাবি করা হয়, দুর্গাপুজোর কয়েকটা দিন এই রাজ্যে রাতে কার্ফু জারি থাকবে। এছাড়াও পুজোর অঞ্জলি দেওয়া থেকে শুরু করে বিসর্জন নিয়েও ওই পোস্টে মিথ্যা তথ্য পরিবেশন করা হয়।

- Advertisement -

পোস্টে আরও উল্লেখ করা হয়, দুর্গাপুজোর বিসর্জনে এবছর শোভাযাত্রা করতে দেওয়া হবে না বলে রাজ্য সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই ভুয়ো পোস্টের বিষয়টি জানার পর মুখ্যমন্ত্রী পুলিশকে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন। তারপর থেকে রাজ্যের প্রতিটি থানার পুলিশ নড়েচড়ে বসে। এরই মধ্যে মেমারির সুনীল মণ্ডল একই পোস্ট সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেন। বিষয়টি নজরে আসতেই বৃহস্পতিবার মেমারি শহর তৃণমূল যুব কংগ্রেস সভাপতি সৌরভ সাঁতরা মেমারি থানায় সুনীল মণ্ডলের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন।

সৌরভ সাঁতরা এদিন বলেন, গত ৭ সেপ্টেম্বর সুনীল মণ্ডল ফেসবুকে দুর্গাপুজো নিয়ে একই রকম ভুয়ো পোস্ট ছড়ায়। ওই পোস্টে সে সাম্প্রদায়িক উসকানিমুলক কাথাবার্তাও লেখে। এছাড়া ২৮ আগষ্ট রাতে মুখ্যমন্ত্রীর ছবি ও ‘বাংলার গর্ব মমতা’ এই লোগোটিকে বিকৃত করেও সুনীল পোস্ট করে। সেই পোস্টে সে মুখ্যমন্ত্রীর ছবিটিকেও বিকৃত করেছে।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে অবমাননাকর এই পোস্টের বিষয়টি দেখে মেমারি শহরের সাধারণ মানুষজনও নিন্দায় সরব হন। তারপরেও ওই পোস্ট প্রত্যাহার করার কোনও সদিচ্ছা দেখায়নি সক্রিয় বিজেপিকর্মী সুনীল মণ্ডল। সৌরভ সাঁতরা বলেন, এদিন ভুয়ো ও আপত্তিকর পোস্টের স্ক্রিনশট সহ তিনি মেমারি থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ পাবার পর পুলিশ অভিযুক্ত সুনীল মণ্ডলকে গ্রেপ্তার করে।