বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু যুবকের

439

আসানসোল: শৌচকর্ম করতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হল এক যুবকের। মৃতের নাম কাজল মাজি (৪০)। শুক্রবার সকালের এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল আসানসোলের কুলটি থানার লালবাজার গ্রামে। অভিযোগ, বিসিসিএলের বিদ্যুতের খুঁটি থেকে অবৈধভাবে হুকিং করে একটি বাড়িতে বিদ্যুতের লাইন টানা হয়েছে। বিদ্যুত চুরির সেই তার খোলা মাঠের কাছে জঙ্গলে ছিঁড়ে পড়ে থাকাতেই বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হয়েছে কাজলের। কাজলকে উদ্ধার করতে গিয়ে বিদ্যুতস্পৃষ্ট হন তাঁর স্ত্রী শ্যামলী মাজিও। ঘটনার জেরে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন গ্রামবাসীরা। খবর পেয়ে এলাকায় কুলটি থানার পুলিশ আসে। আসেন কুলটির বিধায়ক উজ্জ্বল চট্টোপাধ্যায়কেও।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, শুক্রবার সকালে কুলটি থানার লালবাজার গ্রামের বাসিন্দা কাজল মাজি প্রতিদিনের মত বাড়ির অদূরে মাঠের কাছে জঙ্গলে প্রাতঃকৃত্য করতে যান। বাড়ি ফিরতে দেরী হওয়ায় তাঁর স্ত্রী শ্যামলী মাজি স্বামীর খোঁজ করতে বেরোন। তিনি জঙ্গলে গিয়ে দেখেন, স্বামী অচৈতন্য অবস্থায় পড়ে আছেন। স্বামী অসুস্থ হয়ে পড়ে আছেন এই ভেবে হাত ধরে টানতে গিয়ে বিদ্যুতস্পৃষ্ট হন শ্যামলীদেবীও। তখন তিনি বুঝতে পারেন স্বামীর সঙ্গে ঠিক কি ঘটনা ঘটেছে। তাঁর চিৎকারে গ্রামবাসীরা ছুটে আসেন। তাঁরা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করে কাজল মাজিকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক পরীক্ষা করে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

- Advertisement -

কাজলের আত্মীয়া রিয়া মাজি বলেন, বিসিসিএলের ৪৪০ ভোল্টের বিদ্যুতের খুঁটি থেকে হুকিং করে বা চুরি করে ঘরে বিদ্যুত সংযোগ করেছে স্থানীয় বাসিন্দা সুবল পাত্র। তিনি বিসিসিএলের কর্মী। সেই তার বৃহস্পতিবার রাতে কোনওভাবে ছিঁড়ে মাঠে পড়েছিল। সেই তারের উপর পা দেওয়াতেই মৃত্যু হয়েছে কাজলের। কারণ সেই তার যে ছিঁড়ে পড়ে আছে, তা কাজল জানত না। তিনি আরও বলেন, এই ঘটনার পর বিদ্যুত চুরিতে অভিযুক্ত পরিবারের কেউ ঘটনাস্থলে আসেনি। উলটে তাঁরা আমাদেরকে মেজাজ দেখায় ও হুমকি দেয়। আমরা বিসিসিএল কর্তৃপক্ষ ও পুলিশকে সব ঘটনা জানিয়েছি।

এদিকে, কুলটি পুলিশের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, স্থানীয়দের অভিযোগের ভিত্তিতে বিদ্যুত চুরিতে অভিযুক্ত গৃহকর্তা সুবল পাত্রকে আটক করা হয়েছে। বিধায়ক উজ্জ্বল চট্টোপাধ্যায় বলেন, ঘটনাকে কেন্দ্র করে চরম বিশৃঙ্খলা তৈরি হয়েছিল এলাকায়। পরিস্থিতি শান্ত করতে ও প্রকৃত ঘটনার খোঁজ নিতে আমি সেখানে যাই। পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হবে। কারও গাফিলতি পেলে আইনগত ব্যবস্থাও নেওয়া হবে। এদিন বিকালে আসানসোল জেলা হাসপাতালে কাজলের মৃতদেহ ময়নাতদন্তের পরে পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়।