বাড়িওয়ালা ও ভাড়াটের বচসার জেরে খুন যুবক, ধৃত ৭

0
133
- Advertisement -

কলকাতা: বাড়িওয়ালা ও ভাড়াটের বচসাকে কেন্দ্র করে রবিবার সকাল থেকেই উত্তপ্ত হয়ে উঠল পূর্ব কলকাতার ট্যাংরা থানার অন্তর্গত ডিসি দে রোড। শুধু তাই নয় ওই ঘটনার জেরে বাড়িওয়ালা ও তাঁর ছেলেদের হাতে খুন হতে হল এক ব্যক্তিকে। পুলিশ অবশ্য ওই ঘটনায় বাড়িওয়ালা ও তাঁর ছেলে সহ সাতজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

৩৮ ডিসি দে রোডের একটি বাড়ির মালিক অশোক দাস। দীর্ঘদিন ধরে ওই বাড়িতে ভাড়া রয়েছেন সুনীল দাস সহ অন্যান্যরা। বেশকিছু দিন যাবত সুনীল ও অন্যান্যদের বাড়ি ছাড়ার জন্য চাপ দিচ্ছিল বাড়িওয়ালা ও তাঁর ছেলে অনিল। তাঁদের ইচ্ছা ছিল, সেখান থেকে ভাড়াটিয়াদের তুলে দিয়ে প্রোমোটারকে দিয়ে সেখানে একটি বহুতল বানানোর। কিন্তু ভাড়াটেরা তাতে রাজি হননি। এই নিয়ে বাড়িওয়ালার সঙ্গে ভাড়াটেদের অশান্তি চলত।

এদিন সকালেই অশোক দাস, তাঁর ছেলে ও বন্ধু-বান্ধবেরা এসে চড়াও হয় সুনীল দাসের উপর। সুনীল দাসকে যখন বেধড়ক মারধর করা হচ্ছিল, সেসময় তাঁকে বাঁচাতে ছুটে যান এক প্রতিবেশী মনোজ রাম (৩১)। সেখানে মনোজকে আসতে দেখে অনিল ও তাঁর শাগরেদরা একটি লোহার কাঁচি নিয়ে তার পেটে যেমন ঢুকিয়ে দেয়। ইঁট দিয়ে তাঁর মাথা থেতলেও দেয়।

গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে নীলরতন সরকার হাসপাতাল নিয়ে এলে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। এর জেরে সমগ্র এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বাড়িওয়ালা ও তাঁর ছেলে সহ সাতজনকে গ্রেপ্তার করেছে। এলাকায় উত্তেজনা থাকায় কড়া পুলিশ পিকেট বসানো হয়েছে।

- Advertisement -