বিয়ের দাবিতে আমরণ অনশনে যুবতী

665

মুর্শিদাবাদ: নিজের পছন্দের পাত্রকে বিয়ের দাবিতে আমরণ অনশনে বসলেন এক যুবতী। ঘটনাটিকে ঘিরে তীব্র উত্তেজনা তৈরী হয়েছে মুর্শিদাবাদের সাগরদীঘি থানার নওপাড়া এলাকায়।

স্থানীয় সূত্রের খবর, দীর্ঘ সাত বছর ধরে মালদার মানিকচক থানার মথুরা গ্রামের বাসিন্দা পিউ সরকারের (২৭) সাথে প্রণয়ের সম্পর্ক মুর্শিদাবাদের নওপাড়া গ্রামের সদানন্দ ঘোষের (৩২)। এমনকি পিউ এবং সদানন্দের এই সম্পর্কের কথা জানত দুজনের পরিবারই। কিন্তু গত দুসপ্তাহ আগে হঠাৎই এই বিয়েতে বেঁকে বসেন সদানন্দ ও তাঁর পরিবার। আর তারপরই অশান্তি শুরু হয় দুই পরিবারের।

- Advertisement -

এরইমধ্যে রবিবার সকালে মালদা থেকে মুর্শিদাবাদের সাগরদীঘিতে নিজের বিয়ের দাবি নিয়ে এসে উপস্থিত হন পিউ। তাঁর বক্তব্য যতক্ষণ না সদানন্দ তাকে বিয়ে করবার প্রতিশ্রুতি দেবে ততক্ষন সে অনশন চালিয়ে যাবে।

পিউ বলেন, ‘অন্য এক মেয়ের সঙ্গে সদানন্দের বিয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে তাই সদানন্দ এখন বিয়েতে বেঁকে বসেছে। গত সাত বছর ধরে আমার সাথে সদানন্দের সম্পর্ক রয়েছে কিন্তু গত দু’সপ্তাহ আগে হঠাৎই সে বলে আমাকে বিয়ে করতে পারবে না, কারণ তার বাড়ির লোক আমাকে মেনে নিতে রাজি নয়।‘

তিনি বলেন, ‘সদানন্দের বাড়ির লোকের বক্তব্য আমি নাকি ‘বাঙাল’ সে কারণেই আমার সাথে বিয়ে দেওয়া তাদের পক্ষে সম্ভব নয়। আমার বাড়ির লোক সদানন্দের বাবা-মার সাথে আমাদের বিয়ে নিয়ে কথা বলতে এসেছিল। তখন আমার বাড়ির লোকের সাথে তারা দুর্ব্যবহার করে। আমাদের কিছুদিনের মধ্যেই অনুষ্ঠান করে বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সদানন্দ এখন বিয়ে করতে চাইছে না. সে আমাকে বলেছে অন্য কোন পাত্র দেখে বিয়ে করে নিতে। কিন্তু সেটা আমার পক্ষে আর সম্ভব নয়।‘

পিউ জানান, ‘আমি আজকে মালদা থেকে এসেছি সদানন্দের সাথে কথা বলবার জন্য। কিন্তু সদানন্দ এখন আমাকে চিনতেই পারছেনা সে আমাকে চেনেনা বলে তার পরিবারের লোকও আমাকে চিনতে পারছেনা। আমি চাই সদানন্দ এবং তার পরিবারের লোকজন আমাকে বিয়ের ব্যাপারে প্রতিশ্রুতি দিক অথবা সদানন্দ আমাকে মেরে ফেলুক। যতক্ষণ না এই দুটোর কোন একটি হচ্ছে আমি অনশন চালিয়ে যাব, এখান থেকে নড়ব না।‘