মালদা, ৫ ডিসেম্বরঃ হায়দরাবাদের ছায়া এবার মালদায়। বৃহস্পতিবার ইংরেজবাজার থানার টিপাজনি এলাকায় চাকলা মোড়ে এক তরুণীর অর্ধদগ্ধ দেহ উদ্ধার হয়। এলাকার বাসিন্দাদের অভিযোগ, ওই তরুণীকেও ধর্ষণ করে পুড়িয়ে মারা হয়েছে। ঘটনার কথা জানার পর ঘটনাস্থলে যান পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া সহ জেলা পুলিশের শীর্ষ আধিকারিকরা। তরুণীর দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ। পুলিশেরও প্রাথমিক অনুমান, ধর্ষণ করে খুন করার পর পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে ওই তরুণীর দেহ। পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া বলেন, ‘মৃতদেহের কাছ থেকে কিছু নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে‌। মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ  হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ধর্ষণ হয়েছে কি না, তা ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসার পর জানা যাবে।

এদিন ভোরে একটি আমবাগানের মধ্যে ওই তরুণীর দেহ পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয়রা। এরপরেই এলাকায় উত্তেজনা ছড়ায়। ওই মহিলার আশপাশের এলাকার বাসিন্দা নন বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, তরুণীর বয়স ২০ থেকে ২২ বছরের মধ্যে। মৃতদেহের পাশ থেকে এক জোড়া জুতো উদ্ধার হয়েছে। সেটি কোনও পুরুষের বলে মনে করা হচ্ছে। পাশাপাশি কিছু দেশলাই কাঠি উদ্ধার হয়েছে। কেরোসিন তেল ঢেলে দেহ পোড়ানো হয়েছে বলে অনুমান। আপাতত ওই তরুণীর পরিচয় জানার চেষ্টা করছে পুলিশ। ডিএসপি প্রশান্ত দেবনাথ বলেন, ‘২০ থেকে ২২ বছর বয়সী ওই যুবতীর দেহের ওপর থেকে নীচ পর্যন্ত প্রায় ৮০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছে। যৌনাঙ্গে আঘাতের চিহ্নও মিলেছে।  আমরা পুরো ঘটনার তদন্ত শুরু করেছি।’