রাজ্যে মরণোত্তর অঙ্গদানে নতুন দৃষ্টান্ত ১৩-র কিশোরি মধুস্মিতার

211

দুর্গাপুর, ১৮ নভেম্বরঃ মরণোত্তর অঙ্গদানে নতুন দৃষ্টান্ত। এবার ১৩ বছরের কিশোরির ব্রেন ডেথের পর তার অঙ্গ প্রতিস্থাপনের সিদ্ধান্ত নিলেন পরিবারের সদস্যরা। রাজ্যের দীর্ঘতম গ্রিন করিডরে সেই অঙ্গ দুর্গাপুর থেকে কলকাতায় আনা হচ্ছে।

অসমের বাসিন্দা বাঁকুড়ার সিআইএসএফ জওয়ান দিলীপ বায়েন ও তাঁর স্ত্রী অর্চনা বায়েনের ছোটো মেয়ে মধুস্মিতা দেড় বছর বয়স থেকে স্নায়ুর জটিল রোগে আক্রান্ত। শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ার ফলে ১১ নভেম্বর তাকে দুর্গাপুরের বিধাননগরে মিশন হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছিল। ১৬ নভেম্বর তার ব্রেন ডেথ হয়। এরপরই মধুস্মিতার পরিবার তার অঙ্গদানের সিদ্ধান্ত নেন।

- Advertisement -

ইতিমধ্যেই মধুস্মিতার অঙ্গ কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য গ্রিন করিডর তৈরি করা হয়েছে। দুর্গাপুরের কয়েকটি রাস্তায় সমস্ত যান চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। প্রচুর পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে দুর্গাপুরের বিভিন্ন রাস্তা ও ২ নম্বর জাতীয় সড়কে। এই প্রথমবার রাজ্যে এত দূর থেকে সড়কপথে অঙ্গ আসছে।

প্রসঙ্গত, রাজ্যের অঙ্গদানের ইতিহাসে মধুস্মিতা কনিষ্ঠতম যার অঙ্গদান করা হল। দেশের হিসেবে সে থাকছে পঞ্চম স্থানে। জানা গিয়েছে, মধুস্মিতার দুটি কিডনি, লিভার এবং কর্নিয়া সংগ্রহ করা হবে। তবে গ্রহীতা কারা হবেন তা এখনও স্থির করা সম্ভব হয়নি। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে দুজন রোগীর শরীরে দুটি কিডনি প্রতিস্থাপন হবে, লিভার পাবেন একজন এবং কর্ণিয়া সংরক্ষিত থাকবে শঙ্কর নেত্রালয়ে।