পুলিশ হেপাজতে যুবকের মৃত্যু ঘিরে রণক্ষেত্র কুলটি

94

আসানসোল: চুরির ঘটনায় জড়িত সন্দেহে বাড়ি থেকে নিয়ে আসা এক যুবকের পুলিশ হেপাজতে মৃত্যুর ঘটনায় মঙ্গলবার রণক্ষেত্র হয়ে উঠল আসানসোলের কুলটি থানার বরাকর। মৃত যুবকের নাম মহম্মদ আরমান আনসারি (২৮)। মৃত যুবকের বাড়ি বরাকর এলাকায়। এদিন সকালে আরমানের মৃত্যু খবর ছড়িয়ে পড়তেই পরিবারের সদস্য ও এলাকার বাসিন্দারা বরাকর ফাঁড়ির সামনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। তাঁদের অভিযোগ, পুলিশের মারধরে আরমানের মৃত্যু হয়েছে। এই ঘটনায় যারা জড়িত তাদের কঠোর শাস্তি দিতে হবে। উত্তেজিত জনতারা ফাঁড়ি লক্ষ্য করে ইটবৃষ্টি করে। একটি গাড়িতে আগুনও ধরিয়ে দেওয়া হয়। মুহূর্তে গোটা এলাকা অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে। গন্ডগোলের খবর পেয়ে বিশাল পুলিশবাহিনী বরাকর ফাঁড়িতে আসে। নামানো হয় র‍্যাফ ও কমব্যাট ফোর্স। দাবিপূরণ না হওয়ায় দুপুর পর্যন্ত আরমানের মৃতদেহর ময়নাতদন্ত হয়নি। এই ঘটনায় এদিন সকালে আসানসোল দুর্গাপুরের পুলিশ কমিশনার অজয় ঠাকুর জানান, বরাকর ফাঁড়ির ইনচার্জ সহ দু’জনকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত করা হবে।

জানা গিয়েছে, মহম্মদ আরমান আনসারি সহ দু’জনকে একটি চুরির ঘটনায় জড়িত সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কুলটি থানার বরাকর ফাঁড়ির পুলিশ সোমবার রাত ১২টা নাগাদ ফাঁড়িতে নিয়ে আসে। রাত দু’টোর সময় ফাঁড়ি থেকে তাকে কুলটি থানার লকআপে এনে রাখা হয়। মঙ্গলবার সকালে থানার এক সাফাইকর্মী লকআপে এসে দেখেন, আরমান অচৈতন্য অবস্থায় পড়ে আছে। থানার এক পুলিশ অফিসার সঙ্গে সঙ্গে ওই যুবককে আসানসোল জেলা হাসপাতালে নিয়ে এলে চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করেন।

- Advertisement -

ওই যুবকের মৃত্যুর ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়তেই এলাকায় উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। বরাকর এলাকার বাসিন্দারা বরাকর রাস্তা অবরোধ শুরু করেন। একইসঙ্গে বরাকর ফাঁড়ির পুলিশের গাড়ি ও ফাঁড়িতে ভাঙচুর করা হয়। একটি গাড়ি ও দু’টি মোটরসাইকেলে আগুন লাগানো হয়। ইট ছোঁড়া হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাসের সেল ফাটায়।

পুলিশ কমিশনার অজয় কুমার ঠাকুর জানান, পুলিশি হেপাজতে যুবকের মৃত্যুর ঘটনায় বরাকর ফাঁড়ির আধিকারিক ইনচার্জ অমরনাথ দাস ও কুলটি থানার এসআই প্রশান্ত কুমার পালকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। এই ঘটনায় বিভাগীয় তদন্ত করা হবে। পরিবার ও এলাকার বাসিন্দাদের অভিযোগ, পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের নামে বরাকর ফাঁড়িতে নিয়ে এসে পুলিশ মারধর করায় তার মৃত্যু হয়েছে।