শীতলকুচিতে খুন যুবক, রাজনৈতিক টানাপোড়েন দু’পক্ষের

116

শীতলকুচি: ভোট পরবর্তী হিংসা অব্যাহত শীতলকুচিতে বিধানসভায়। সোমবার ছোটো শালবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের নওতাবাস গ্রামে মানিক মৈত্র নামে এক যুবক গুলিবিদ্ধ হয়। তাঁকে দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করেন। তবে, মৃত যুবক কোন রাজনৈতিক দলের সমর্থক তা নিয়ে টানাপোড়েন দুই রাজনৈতিক শিবিরের।

বিজেপির শীতলকুচি ১৮ নম্বর মন্ডল সভাপতি পবিত্র বর্মনের অভিযোগ, শীতলকুচি ব্লকের সমস্ত বুথে বিজেপি সমর্থক ও কর্মীদের বাড়ি ভাঙচুর ও লুটপাট করছে তৃণমূলকর্মী ও সমর্থকরা। মানিক মৈত্র বিজেপি কর্মী। তাঁর বাড়িতে হামলা করে গুলি করে খুন করে  তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। পুলিশ ও কমিশন সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ।

- Advertisement -

অপরদিকে, সংশ্লিষ্ট বুথের তৃণমূল কংগ্রেসের পঞ্চায়েত সদস্য সুজিত চন্দ্র বর্মন বলেন, ‘মানিক মৈত্র আমাদের দলেরই সমর্থক। তাঁকে কে গুলি করল বুঝে উঠতে পারছি না।‘

মৃত যুবকের কাকা কার্তিক মৈত্র বলেন, ‘মানিক কোনও রাজনীতি করত না। তৃণমূল বিজেপি সংঘর্ষ দেখতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যায়।‘

মাথাভাঙ্গা এডিশনাল এসপি সিদ্ধার্থ দর্জি জানান, গুলিবিদ্ধ হওয়ার খবর পেয়েছি। এলাকায় পুলিশ টহল চলছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।